সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ

করোনার জাল নেগেটিভ সার্টিফিকেট নিয়ে ইটালি

jawed hussain | Bengal desk

Updated on : July 10, 2020


করোনার জাল নেগেটিভ সার্টিফিকেট নিয়ে ইটালি


আমিনুল হক, নেশন ১ ভয়েস, ঢাকা : বর্তমান করোনাকালে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে প্রবেশ নিষেধ। যেসব দেশে যাবার অনুমতি মেলে, তার প্রথম শর্ত করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট। ইটালিতে যখন করোনামহামারি ভয়াবহরূপ নেয়, তখন প্রায় ৭ হাজারের বেশি বাংলাদেশি প্রবাসী দেশে ফিরে আসেন। জুন মাসের শেষ নাগাদ ইটালির পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে শুরু করে, তখন বাংলাদেশি প্রবাসীরাও যাবার প্রস্তুতি নেন এবং জরুরি ভিত্তিতে রাজধানীর উত্তরার রিজেন্ট হাসপাতাল থেকে করোনার নেগেটিভ সার্টিফিকেট সংগ্রহ করেন। এরই মধ্যে প্রায় ১ হাজারেরও বেশি প্রবাসী ইটালিতে গিয়েছেন। যাদের অধিকাংশ বাংলাদেশের রিজেন্ট হাসপাতালসহ কয়েকটি হাসপাতাল থেকে করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকে নিয়েছেন। এখন তাদের দিন কাটছে চরম দুঃশ্চিন্তায়। জানা গেছে, ইতালিতে প্রায় লাখ দুয়েকের বেশি বাংলাদেশি রয়েছেন। ২৬ জুন ও ৬ জুলাই দুটি ফ্লাইটে ইটালি যাওয়া ২৯জন বাংলাদেশির করোনা পজেটিভ আসে। করোনাভাইরাসের জাল সার্টিফিকেট শনাক্ত হওয়ায় দেশটির স্বাস্থ্য বিভাগ ৫ অক্টোবর পর্যন্ত আর কোনো বাংলাদেশিকে প্রবেশ করতে দেবে না। জানা গেছে, সরকারীভাবে দ্রুত টেস্ট রিপোর্ট না পাওয়ার কারণে প্রাইভেট হাসপাতালের থেকে করোনা টেস্টের সার্টিফিকেট নিয়ে ইটালি গিয়েছেন তারা। যারাদের মধ্যে চলতি সপ্তাহে আরও ৮০০ বাংলাদেশির ইতালি যাবার কথা ছিল। প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা পর তাদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। অনেকের ওয়ার্ক ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে যাচ্ছে। দেশটির সরকার যখন অবৈধ বাংলাদেশিদের বৈধকরণ প্রক্রিয়ায় শুরু করেছে, ঠিক তখন করোনা নেগেটিভ জাল সার্টিফিকেট প্রভাব পড়ার আশঙ্কা করছেন অনেকে। ইটালি প্রবাসী কামরুল সারোয়ার বলেন, প্রথম ধাপের ইটালি থেকে যারা বাংলাদেশে গিয়েছিলেন, সরকারের তরফে তাদের করোনা পরীক্ষা এবং কোয়ারেন্টাইনের ব্যবস্থা করা হলে, আজ এমন বিপদে পড়তে হতো না। জানা গেছে, সর্বশেষ শুক্রবার রোম এয়ারপোর্ট থেকে ফেরত পাঠানো ১৬৫ বাংলাদেশিও রিজেন্ট হাসপাতাল থেকেই করোনা টেস্ট করিয়েছেন। এদিন গভীর রাতে ঢাকায় ফিরে আসলে শনিবার ১৪৭ জনকে বিমানবন্দর সংলগ্ন আশকোনা হজ¦ক্যাম্পে সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে কোয়ারেন্টাইনে নেওয়া হয়। রিজেন্টের জাল টেস্ট এর কারণে, ইটালিতে কমপক্ষে ৩০ হাজার বাংলাদেশি প্রবাসীকে ফের করোনা টেস্ট করতে হচ্ছে। এ কারণে তাদের আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়তে হয়েছে। রিজেন্ট হাসপাতালসহ স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলোতে সাড়ে ৩ হাজার থেকে ৫ হাজার টাকায় মধ্যে জাল সনদ বিক্রি হচ্ছে। ইতালি ফেরত এক আক্রান্ত প্রবাসী বাংলাদেশি রেস্তোরাঁয় কাজ করায় ঐ মালিকের দুটি রেস্টুরেন্ট বন্ধ করে দিয়েছে প্রশাসন। প্রবাসী বাংলাদেশিদের বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানেও হানা দিচ্ছে দেশটির প্রশাসন। গত জুন মাসে বিশেষ ফ্লাইটে যারা ইতালি গেছেন, তাদের অনেকে দ্রুত সার্টিফিকেট পেতে রিজেন্ট ও জেকেজি হেলথ কেয়ার (জোবেদা খাতুন সার্বজনীন চিকিৎসাসেবা) থেকে সনদ সংগ্রহ করেছেন। ইতালিতে যাওয়া করোনা রোগীদের অধিকাংশের সার্টিফিকেট রিজেন্টের দেওয়া। বাংলাদেশে এই খবর জানায়, ইটালির বাংলাদেশ দূতাবাস। এরপরই রিজেন্ট হাসপাতালে অভিযান চালায় র্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ানের (র্যাব) নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। তথ্য প্রমাণ পাওয়ার পর হাসপাতালটি সিলগালা করে দেয়া হয়। অভিযানকালে একাধিক ব্যক্তিকে আটক ও পরীক্ষার জাল কাগজপত্র জব্দ করা হয়। হাসপাতালটির চেয়ারম্যান মো. সাহেদ যাতে দেশত্যাগ করতে না পারে, সেজন্য নির্দেশনা জারি করা হয়। মামলার পাশাপাশি প্রতিষ্ঠানটির সকল ব্যাংক ফ্রিজ করে দেওয়া হয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, সাহেদের শাস্তি হবেই।



leave a comment

Facebook- এ লাইক করুন

Twitter- এ অনুসরণ করুন


খেলার জগত सभी ख़बरें पढ़ें...

মনোরঞ্জন सभी ख़बरें पढ़ें...