সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ

নৌকায় সাগর পাড়ি দিয়ে ৩৬২ বাংলাদেশি নাগরিক ইটালিতে

jawed hussain | Bengal desk

Updated on : July 12, 2020


নৌকায় সাগর পাড়ি দিয়ে ৩৬২ বাংলাদেশি নাগরিক ইটালিতে


আমিনুল হক, নেশন ১ ভয়েস, ঢাকা : মৃত্যুকে আঙ্গিন করে অথৈ সাগর পাড়ি দিচ্ছেন অভিবাস প্রত্যাশিরা। সাগরের উত্তাল ঢেউয়ের সঙ্গে যুদ্ধে হেরে গিয়ে অসংখ্য অজানা মানুষের সলিল সমাধি হয়েছে নোনা জলে। স্বচ্ছল জীবনের হাতছানিতে দক্ষিণ এশিয়ার বহুদেশের বহু নাগরিক অবৈধভাবে সাগর পাড়ি দিতে গিয়ে অথৈ জলরাশিতে হারিয়ে গিয়েছেন। বাস্তবিকভাবেই এর কোন সঠিক পরীসংখ্যান নেই। যথারীতি সাগর জয় করে অভিবাসন প্রত্যাশি ৩৬২ জন বাংলাদেশি এরই মধ্যে ইটালি উপকুলে পৌছানোর খবর পাওয়া গেছে। শুক্রবার আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থার (আইওএম) বলছে, অবৈধপথে সাগর পাড়ি দিয়ে গত দুই দিনে ইতালিতে অবতরণ করেছেন এমন ৫শতাধিক অভিবাসন প্রত্যাশীদের ৩৬২ জনই বাংলাদেশের নাগরিক। তাদের সবাইকে সিসিলি উপকূলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। সেখানে ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে রাখা হবে। জানা গেছে, উদ্ধার হওয়া এসব নাগরিকরা আলাদাভাবে সেখানে পৌছান। যেমন লিবিয়া থেকে একটি নৌকায় ৯৫ জন এবং অপর নৌকার ২৬৭ জনসহ মোট ৩৬২ জন হচ্ছে, বাংলাদেশের নাগরিক। তাদের সাহায্য করছেন ইতালির স্বেচ্ছাসেবক দল। আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা জানায়, গত বৃহস্পতিবার তিউনিশিয়া থেকে ১১৬ অভিবাসনপ্রত্যাশীকে নিয়ে ইতালির লাম্পেদুসা দ্বীপে পৌঁছোয় ৯টি নৌকা। শুক্রবার তিউনিশিয়া থেকে আরও ৭টি ছোট নৌকা ও লিবিয়া থেকে দুটি বড় নৌকায় ইতালি পৌঁছে আরও ৪৩৪ জন। এক সপ্তাহেরও বেশি সময় পর গত সপ্তাহে ভূমধ্যসাগর থেকে উদ্ধার ১৮০ অভিবাসনপ্রত্যাশীকে জাহাজ থেকে নামার অনুমতি দেয় ইতালি। এদের মধ্যেও অনেক বাংলাদেশি রয়েছে বলে জানা গেছে। তারা কীভাবে দেশটিতে পৌঁছেছে তা এখনও জানায়নি ইতালির কোস্ট গার্ড। ইতালীর গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, গ্রীষ্মকালে সমুদ্র শান্ত থাকার সুযোগে চলতি মৌসুমের শুরু থেকেই অবৈধপথে ইতালি যাচ্ছেন বিভিন্ন দেশের অভিবাসনপ্রত্যাশীরা। চলতি বছরে এখন পর্যন্ত ৮ হাজারের বেশি অভিবাসনপ্রত্যাশী অবৈধপথে ইতালি পৌঁছেছে। গত বছরের তুলনায় সেখানে অবৈধ অভিবাসী প্রবেশের হার বেড়েছে কয়েকগুণ। ২০১৮ সালে একই সময়ে ইতালি গিয়েছিলেন প্রায় ১৭ হাজার অভিবাসন প্রত্যাশী।



leave a comment

Facebook- এ লাইক করুন

Twitter- এ অনুসরণ করুন


খেলার জগত सभी ख़बरें पढ़ें...

মনোরঞ্জন सभी ख़बरें पढ़ें...